English    ফটো গ্যালারি    ভিডিও গ্যালারি
শিরোনাম :
বাংলাদেশের চিরবন্ধু ফাদার রিগন আর নেই      সাগরে নিম্নচাপ : দেশে সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত ১৪৩ মিলিমিটার      বৈরি আবহাওয়ায় : নৌ চলাচল বন্ধ      আমারাও চাই আগামী নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হোক : প্রধানমন্ত্রী       আগামী বুধবার দেশে ফিরবেন খালেদা জিয়া      জামায়াতের কারণেই দশম সংসদ নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করেনি বিএনপি : হানিফ      এবার সারা দেশে ৩০ হাজার ৭৭টি মণ্ডপে পূজা হবে      
চট্টগ্রাম বন্দরে বেসরকারি আইসিডিগুলোর লাইসেন্স বাতিলের পরামার্শ
Published : Tuesday, 1 August, 2017 at 2:00 PM, Count : 3811
চট্টগ্রাম বন্দরে বেসরকারি আইসিডিগুলোর লাইসেন্স বাতিলের পরামার্শ নিজস্ব প্রতিবেদক : চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর কেন্দ্রিক বেসরকারি ইনল্যান্ড কনটেইনার ডিপোগুলো (আইসিডি) তেমন কোনো কাজ করছে না। তাই বন্দর কর্তৃপরে চেয়ারম্যানকে এগুলোর লাইসেন্স বাতিল করার পরামর্শ দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর ও বেনাপোল স্থলবন্দর সপ্তাহে ৭ দিন ২৪ ঘণ্টা খোলা রাখার বিষয়ে সংশ্লিষ্ট স্টেকহোল্ডারদের কার্যক্রম সমন্বয় শীর্ষক সভায় সোমবার তিনি এসব কথা বলেন।

সভায় নৌমন্ত্রী শাহজাহান খান, এনবিআর চেয়ারম্যান নজিবুর রহমান, অর্থ বিভাগের সিনিয়ার সচিব হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. ইউনুসুর রহমান, বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এস এম মনিরুজ্জামান, চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপরে চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল এম খালেদ ইকবাল, বিজিএমইএ সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘আমার মনে হয় প্রাইভেট আইসিডির সবগুলোর লাইসেন্স বাতিল করে দেয়া দরকার।’

বৈঠকেই তিনি বন্দরের চেয়ারম্যানকে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়ার নির্দেশ দিয়ে বলেন, ‘এরা আপনাকে কোনো রকম সাহায্য করছে না। এদের লাইসেন্স বাতিল করে দেয়া উচিত। এটা খুবই লজ্জার বিষয় যে আমদানির েেত্র জাহাজ আনলোড করার জন্য বন্দরে অপো করতে হয়। এর ফলে ব্যবসার খরচ বাড়ে। এটা একটা ন্যাশনাল লসও বটে। আবার রফতানির জন্য যেসব কার্গো চট্টগাম বন্দরে যায় সেগুলোকে তিন-চারদিন পর্যন্ত অপো করতে হয়। তারপর তারা অপলোড করার জায়গাও পায় না।’

মন্ত্রী বলেন, ‘এর আগে আমি একবার নিজে চট্টগ্রাম বন্দরে গিয়েছিলাম। সেখানকার অবস্থা খুবই খারাপ ছিল। এখনও খুব একটা উন্নয়ন হয়নি। আমার মনে হয় বন্দরে লজিস্টিক প্লাটফর্ম উন্নয়ন প্রয়োজন। আমদানি-রফতানির জন্য যেখানে অপো করা হয় সে জায়গাটা আরও প্রসস্থ হওয়া প্রয়োজন।’

তিনি আরও বলেন, ‘বন্দরে কনটেইনার অনেক দিন রাখা হলে এর বিদ্যুৎ বিল জাহাজ মালিককে দিতে হয়। এটা ঠিক নয়।’ এখন বন্দর কর্তৃপ যদি কোনো কনটেইনার আটয়ে রাখে তাহলে এর বিল বন্দরকেই দেয়ার নির্দেশ দেন তিনি।

মুহিত বলেন, ‘কিছু কিছু পদপে আমরা ইতোমধ্যে নিয়েছি যেমন- গ্রিন চ্যানেল এটা বাজেটেই বলা হয়েছে।’ এনবিআর চেয়ারম্যানকে এটা দ্রুত বাস্তবায়ন করার আহ্বান জানান তিনি।






Join With Us
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক ও প্রকাশক: মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন জিটু
সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৪৫/৩, বীর উত্তম সি.আর.দত্ত রোড (ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, সোনারগাঁও রোড), হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫, বাংলাদেশ।
ফোনঃ +৮৮-০২-৯৬৬৬৬৮৫, ৯৬৭৫৮৮৫, ৯৬৬৪৮৮২-৩, ফ্যাক্সঃ +৮৮-০২-৯৬১১৬০৪, হটলাইন : +৮৮০-১৯২৬৬৬৭০০২-৩
ই-মেইল : pressgonokantho@yahoo.com, gonokanthomofossal@yahoo.com, editorgonokantho@yahoo.com, web : www.gonokantho.com.bd