English    ফটো গ্যালারি    ভিডিও গ্যালারি
শিরোনাম :
ভূয়া জন্মদিন পালন করে খালেদা জিয়া বিকৃত মানসিকতার পরিচয় দিচ্ছেন      মীর কাসেম আলীর রিভিউর পরবর্তী শুনানি রোববার      সন্তান নিখোঁজের তথ্য সমাজকেই বের করতে হবে      গত ৭ বছরে সাড়ে ১০ কোটি নতুন কর্মসংস্থান       পরমাণু কৃষি গবেষণা আইনের খসড়া অনুমোদন      নিজামীর রিভিউ শুনানি ৩ মে      ভাড়াটিয়া নিবন্ধনের দায়িত্ব বাড়িওয়ালাদের      
মামলা স্থগিতসহ সেনা মোতায়েনের বিষয় স্পষ্ট করতে হবে : এমাজউদ্দীন
Published : Tuesday, 8 August, 2017 at 6:53 PM, Count : 1322
মামলা স্থগিতসহ সেনা মোতায়েনের বিষয় স্পষ্ট করতে হবে : এমাজউদ্দীন নিজস্ব প্রতিবেদক : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) সাবেক উপাচার্য ড. এমাজউদ্দীন আহমদ বলেছেন, নিরপেক্ষ এবং লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি করতে বিএনপির নামে ২৫ হাজার মামলা শিথিল করতে হবে। যদি চালাতে চায় তারপরেও নির্বাচন পর্যন্ত স্থগিত রাখতে হবে। সেনা মোতায়েন নিয়ে কমিশনের বক্তব্য স্পষ্ট হতে হবে। নির্বাচন চলাকালীন সময়ে সরকারের মন্ত্রী এমপিদের নির্দেশ অবৈধ। তাদের নির্দেশ না মানার ক্ষমতা বা সাহস থাকতে হবে।

মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় প্রেস কাবে গোলটেবিল আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। ‘নির্বাচনী রোড ম্যাপ : নিরপেক্ষ নির্বাচনে সংকট ও সম্ভাবনা’ গোলটেবিল সভার আয়োজন করে বাংলাদেশ সেন্টার ফর ডায়লগ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (বিসিডিডি) নামের একটি সংগঠন।

ড. এমাজউদ্দীন বলেন, দেশের সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরাও চায় নির্বাচনে সেনা মোতায়েন হোক। ১৯৯১, ১৯৯৬ এবং ২০০১ সালে নির্বাচনে আগে সেনা মোতায়েন হওয়ায় নিরপেক্ষ নির্বাচন হয়েছিল। নির্বাচন নিয়ে তখন কোনো প্রশ্ন ওঠেনি।

তিনি বলেন, সেনাবাহিনী প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় সাধারণ মানুষের সেবায় নিয়োজিত হয়। জাতীয় পর্যায়ে গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচনে তাদের সহযোগিতা নেব না কেন? সেনাবাহিনীর ওপর জনগণের আস্থা রয়েছে।

খালেদা জিয়ার অন্যতম পরামর্শক হিসেবে পরিচিত ড. এমাজউদ্দীন আহমদ বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচন করতে হলে নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন অবশ্যই জরুরি। কিন্তু তার পাশাপাশি লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি করতে হবে। কিন্তু বর্তমানে এমন পরিবেশ নেই। ২০১৪ সালের নির্বাচন ছিল জাতীয় এবং আন্তর্জাতিকভাবে ভয়ঙ্কর সমালোচনার এবং হাস্যকর।

কমিশনের দেয়া নির্বাচনকালীন রোড ম্যাপ নিয়ে তিনি বলেন, রাস্তার চূড়ান্ত চিত্র অঙ্কন করতে হলে চূড়ান্ত গন্তব্য তৈরি করতে হয়। বাংলাদেশের গন্তব্য হচ্ছে নিরপে নির্বাচন, যা জনগণ এবং বিশ্বের কাছে গ্রহণযোগ্য হবে। এর পর রোড ম্যাপ দিতে হবে।

তিনি বলেন, সুষ্ঠু নিরপে নির্বাচন করতে কমিশন ভূমিকা রাখবে। একই সঙ্গে সরকারের পক্ষ থেকে ঘোষণা আসবে সংসদ ভেঙে দেয়ার, এমনটাই আশা করি।

সংগঠনের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মো. রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিএনপির শিা বিষয়ক সম্পাদক এবি এম ওবায়দুল ইসলাম, নির্বাহী কমিটির সদস্য খালেদা ইয়াসমিন, বাংলাদেশ জাতীয় দলের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সৈয়দ এহসানুল হুদা, স্বাধীনতা অধিকার আন্দোলনের সভাপতি ড. কাজী মনিরুজ্জামান মনির, জিনাপের সভাপতি মিয়া মো. আনোয়ার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।






Join With Us
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক ও প্রকাশক: মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন জিটু
সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৩৪৫/৩, বীর উত্তম সি.আর.দত্ত রোড (ফ্রি স্কুল স্ট্রিট, সোনারগাঁও রোড), হাতিরপুল, কলাবাগান, ঢাকা-১২০৫, বাংলাদেশ।
ফোনঃ +৮৮-০২-৯৬৬৬৬৮৫, ৯৬৭৫৮৮৫, ৯৬৬৪৮৮২-৩, ফ্যাক্সঃ +৮৮-০২-৯৬১১৬০৪, হটলাইন : +৮৮০-১৯২৬৬৬৭০০২-৩
ই-মেইল : pressgonokantho@yahoo.com, gonokanthomofossal@yahoo.com, editorgonokantho@yahoo.com, web : www.gonokantho.com.bd